নিউ ইয়র্ক অ্যাসেম্বলি-ওম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বাংলাদেশী জোবাইদা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মেরি জোবাইদা, নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশী কমিউনিটির জনপ্রিয় মুখ। বাংলাদেশের বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালী জেলায় জন্ম তিন সন্তানের জননী মেরি জোবাইদা সিলেটি বধূ। নিউ ইয়র্কে অঙ্গরাজ্য সরকারের অ্যাসেম্বলি-ওম্যান পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত এই আমেরিকান। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ক্যাথরিন নোলেন। তিনি নিউ ইয়র্কের পশ্চিম কুইন্স থেকে দীর্ঘ দিনের প্রতিনিধিত্বকারী। মেরি জোবাইদা তার প্রার্থিতার মাধ্যমে ৩৫ বছর ধরে প্রতিনিধিত্বকারী ক্যাথরিন নোলানকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন। ২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য ওই নির্বাচনে বিজয়ী হলে মেরি জোবাইদা নিউ ইয়র্কের রাজধানী আলবেনির প্রতিনিধি সভায় দায়িত্ব পালনের সুযোগ পাবেন। প্রতিনিধিত্ব করবেন নিউ ইয়র্কের ডিস্ট্রিক্ট-৩৭ এর। খবর নিউ ইয়র্কের কমিউনিটিভিত্তিক সংবাদমাধ্যম কিউএনএসের। গত এক দশকে নোলেনকে প্রাথমিক নির্বাচনে কেউ চ্যালেঞ্জ জানাননি। এবারই প্রথম ক্যাথরিন নোলেন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছেন। সংবাদমাধ্যমটি বলছে, তিন সন্তানের মা মেরি জোবাইদা নিজের ডিস্ট্রিক্টে একটি সত্যিকারের গণতান্ত্রিক নির্বাচন দেখতে চান।
নিজের প্রার্থিতার বিষয়ে মেরি জোবাইদা গণমাধ্যমকে বলেন, এ দেশ আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে, তাই আমার মন থেকে আমি এ দেশের মানুষের জন্য কিছু করতে চেয়েছিলাম। ভোট দিতে গিয়ে গণতন্ত্রের অনুপস্থিতি দেখে আমার মনে হলো, এখান থেকেই শুরু হতে পারে।
নিউ ইয়র্কের কোর্ট স্কয়ারে দুই দশক ধরে বাস করছেন মেরি জোবাইদা। সেখানকার বাংলাদেশী কমিউনিটিতে তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ। নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিডিয়া, কালচার অ্যান্ড কমিউনিকেশনসে স্নাতক ডিগ্রি নিয়ে সাংবাদিকতার পাশাপাশি সেবামূলক বিভিন্ন কাজ করে আসছেন মেরি জোবাইদা।
কমিউনিটির পাশাপাশি মূলধারায়ও তার কাজের পরিধি বাড়িয়েছেন। বর্তমানে তিনি নিউ ইয়র্কের ব্রঙ্কসে আরবান হেলথ প্যানের আউটরিচ স্পেশালিস্ট হিসেবে কর্মরত। এর আগে প্যানোরামা বাংলাদেশের ক্যারিয়ার অ্যাডভাইজর, নিউ ইয়র্কে বাংলাভাষার টেলিভিশন চ্যানেল টাইম টিভির প্রোগ্রাম ম্যানেজার ও সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকার ফিচার রাইটার হিসেবে কাজ করেছেন। ছাত্রজীবন থেকেই সাংগঠনিক সক্ষমতা অর্জন করেছেন মেরি জোবাইদা। লাগর্ডিয়া কমিউনিটি কলেজের (কিউনি) স্টুডেন্ট গভর্নমেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের ভিপি ও এপিআই লিডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়াও নিউ ইয়র্ক সিটি ইউনিভার্সিটির কমিটি ফর চাইল্ড কেয়ারের সেনেটর/চেয়ার ছিলেন মেরি জোবাইদা। নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে বাংলাদেশ ছাড়ার আগে লালমাটিয়া মহিলা কলেজ ও ঢাকা সিটি কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন মেরি জোবাইদা। তিনি বাংলাদেশের পটুয়াখালী জেলার সন্তান।
প্রগতিশীল ডেমোক্র্যাট মেরি জোবাইদা বলেন, আমি মানুষের শক্তি আবারো মানুষের কাছে ফেরত দিতে চাই।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *